সাংস্কৃতিক বিনিময়ের মাধ্যমে সম্পর্কের সেতু গড়া

হাস্যোজ্জ্বল তিন ব্যক্তি (© কাইল ক্লেইন পার্লার /আর্টস কানেক্ট ইন্টারন্যাশনাল)
এক্সচেঞ্জ ভিজিটর প্রোগ্রামে অংশ নেওয়া হিপপোলাইট এনটিগুরির ওয়া (বাঁয়ে), এন্ড্রিয়া গর্ডিলো (মাঝে) এবং চ্যানেল মাতসুনামি গভরো। এক্সচেঞ্জ ভিজিটর প্রোগ্রামের বেসরকারি খাতের কর্মসূচিগুলো ‘ব্রিজইউএসএ প্রোগ্রাম’ নামে নতুন করে সাজানো হয়েছে। (© কাইল ক্লেইন পার্লার / আর্টস কানেক্ট ইন্টারন্যাশনাল) 

আমেরিকান সংস্কৃতি, পররাষ্ট্রনীতি দৃষ্টিভঙ্গী সম্পর্কে বিদেশিদের আরও ভালো ধারণা পেতে সহায়তা করতে যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষা বিনোদনমূলক বিনিময় গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসেবে কাজ করে  

ব্রিজইউএসএ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র দপ্তরের এক্সচেঞ্জ ভিজিটর প্রোগ্রামের আওতাধীন বেসরকারি খাতের বিনিময় কর্মসূচির নতুন নাম শিক্ষাগত সাংস্কৃতিক বিনিময় কর্মসূচিটি যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য দেশের মানুষের মধ্যে পারস্পরিক বোঝাপড়া বাড়িয়েছে এর আওতায় গত ৬০ বছরে লক্ষাধিক মানুষকে যুক্তরাষ্ট্রে স্বাগত জানানো হয়েছে

গ্রাফিক্স: এতে বলা হয়েছে-ব্রিজইউএসএ:বৈশ্বিক নেতাদের মধ্যে যোগসূত্র সৃষ্টির মাধ্যমে স্খায়ী প্রভাব রাখা (পররাষ্ট্র দপ্তর)এই বিনিময় কর্মসূচির মাধ্যমে বেসরকারি খাতের স্পনসররা গ্রীষ্মকালীন কাজে ভ্রমণ, ইন্টার্ন, শিক্ষক এবং পেয়ারসহ ১৩ টি বিভাগে এক্সচেঞ্জ ভিজিটর পাঠাতে পারেন

শিক্ষা সংস্কৃতি বিষয়ক সহকারি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেরি রয়েস গত ২৭শে অক্টোবর বলেন, ‘নতুন নামের মাধ্যমে ব্রিজইউএসএ বেসরকারি খাতের কর্মসূচিগুলোর জন্য আরও ইতিবাচক, পেশাদার এবং প্রাসঙ্গিক পরিচিতি গড়ে তুলবেনিজেদের লক্ষ্য আর কর্মসূচির আদর্শগুলো আরও কার্যকরভাবে প্রচারে মনোনিবেশ করছি।’ 

ব্রিজইউএসএ বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশের মধ্যে বন্ধুত্বের সেতু বন্ধন তৈরী করেছে । কর্মসূচিটির নাম থেকেই এর লক্ষ্যটা স্পষ্ট।আর তা হচ্ছে  বিশ্বজুড়ে  নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিদের একটি নেটওয়ার্ক গড়ে তোলা যা তাদের নিজ নিজ এলাকা তথা গোটা বিশ্বে একটি স্থায়ী প্রভাব ফেলবে

প্রতিবছর ব্রিজইউএসএ বিশ্বের ২০০টি  দেশ অঞ্চল থেকে তিনলাখের বেশি মানুষকে শিক্ষামূলক এবং সাংস্কৃতিক বিনিময়ের সুযোগ দেয় কর্মসূচিটির মাধ্যমে বিদেশিরা আমেরিকানদের  বুঝতে তাদের সাথে মেশার মাধ্যমেযুক্তরাষ্ট্রের সমাজ সংস্কৃতির অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ পান

লিংকন মেমোরিয়ালের সামনে বিভিন্ন দেশের পতাকা হাতে একদল সফরকারী (©কালচারাল হোমস্টে ইন্টারন্যাশনাল) 
২০১৭ সালের ১৪ ই আগস্ট ওয়াশিংটনের লিংকন মেমোরিয়াল পরিদর্শনকারী এক্সচেঞ্জ ভিজিটর কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী একটি দল (©কালচারাল হোমস্টে ইন্টারন্যাশনাল)

এক্সচেঞ্জ ভিজিটর কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীরা তাদের বয়স এবং যোগ্যতার ভিত্তিতে বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক এবং শিক্ষামূলক কর্মসূচিতে যোগ দেন যুক্তরাষ্ট্রে স্বীকৃত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াতে বা নিজেরা অধ্যয়ন করতে পারেন তারা এছাড়া পারেন হোস্ট পরিবারের সঙ্গে কিছুদিন থাকতে বা বিভিন্ন হোস্ট প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে প্রশিক্ষণ নিতে।

সহকারি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেরি রয়েস বলেছেন, সাংস্কৃতিক বিনিময় কর্মসূচি আবার নিরাপদে চালু করতে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর  কর্মসূচির সব অংশীদারদের সঙ্গে কাজ করায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ

গিরিখাতে দুদিকে পাথরের দেয়ালের মাঝে এক ব্যক্তি (ভিক্টর ভিনসেজের সৌজন্যে)
ইউটা অঙ্গরাজ্যের ক্যানিয়ন ল্যান্ডস ন্যাশনাল পার্কে ভিক্টর ভিনসেজ। গ্রীষ্মকালীন কাজের উদ্দেশ্যে যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের জন্য জে -১০ ভিসা পেয়েছিলেন তিনি।(ভিক্টর ভিনসেজের সৌজন্যে)।

‘(যুক্তরাষ্ট্রের) গৃহযুদ্ধের সময় প্রেসিডেন্ট (আব্রাহাম) লিংকন ক্যাপিটল ভবনের জন্য একটি নতুন গম্বুজ তৈরির কাজ এগিয়ে নিয়েছিলেন যুদ্ধের পর আবার একটি ঐক্যবদ্ধ ইউনিয়ন গড়ে ওঠার ব্যাপারে তার আস্থারই প্রতীক ছিল তা আন্তর্জাতিক এক্সচেঞ্জ কর্মসূচির  উজ্জ্বল ভবিষ্যত অব্যাহত প্রভাব নিয়ে পররাষ্ট্র দপ্তরের আস্থাটাও একই মাত্রার, বলেন মন্ত্রী রয়েস

মেরি রয়েসের মতে,  এজন্যই যুক্তরাষ্ট্রের এক্সচেঞ্জ কর্মসূচিগুলোর ব্র্যান্ডিংকে আরও জোরদার করতে উল্লেখযোগ্য প্রচেষ্টা এবং সম্পদ বিনিয়োগ করছে ইসিএ