যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য সহায়তা কর্মসূচি বিশ্বব্যাপী শিশুদের খাওয়াতে এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোতে কৃষকদের উৎপাদনশীলতা বাড়াতে সহায়তা করছে।

যুক্তরাষ্ট্র সরকার এর কৃষি দপ্তরের (ইউএসডিএ ) ‘ফুড ফর প্রগ্রেস’ কর্মসূচির মাধ্যমে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে ২০১৯ সালে ৩৫ কোটি ১০ লাখ ডলারেরও বেশি মূল্যের খাদ্য সহায়তা বিতরণ করেছে। কৃষি দপ্তরের আন্তর্জাতিক খাদ্য সহায়তা প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৪১ লাখ শিশুর জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ২০১৯ অর্থবছরটি ১ অক্টোবর, ২০১৮ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর,২০১৯ পর্যন্ত চলে। ইউএসডিএ ২০২০ এর ২৪ নভেম্বর প্রকাশিত উল্লিখিত প্রতিবেদনে বলেছে, ‘এই সহায়তাগুলো বিদ্যালয়ে খাবার সরবরাহ করা এবং সক্ষমতা বৃদ্ধির উদ্যোগে সহায়তা করেছে যা উন্নয়নশীল দেশগুলোতে কৃষি উৎপাদন এবং অর্থনৈতিক প্রসারকে এগিয়ে নিয়েছে।’

ইউএসডিএর খাদ্য সহায়তা কর্মসূচিগুলো কৃষি বাণিজ্যকেও এগিয়ে নেয় এবং পছন্দনীয় বাণিজ্য অংশীদার হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান শক্তিশালী করে।

২০১৯ সালে ইউএসডিএ যেসব দেশকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছে তাদের তালিকা।(উৎস: ইউএসডিএ। ছবি: মিরোস লাভ/কীথ বার্নস/শাটারস্টক।গ্রাফিকস: পররাষ্ট্র দপ্তর/এম.রিওস)
গ্রাফিকস: পররাষ্ট্র দপ্তর/এম.রিওস

২০১৯ অর্থবছরে ইউএসডিএর খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির মাধ্যমে বিতরণ করা সহায়তা এশিয়া, আফ্রিকা এবং দক্ষিণ ও মধ্য আমেরিকার ৪৫ টি দেশের ৪৪ লাখের বেশি মানুষের কাছে পৌঁছেছে।

স্বেচ্ছাসেবক এবং বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার মাধ্যমে ইউএসডিএর বিভিন্ন কর্মসূচি বিশ্বব্যাপী স্কুলে শিক্ষার্থীদের খাবার দেওয়া এবং পুষ্টি কর্মসূচিতে তহবিল যোগায়। পাশাপাশি কৃষকদের উৎপাদনশীলতা বাড়ানোর জন্য প্রশিক্ষণ এবং কারিগরি সহায়তা দেয়।

ইউএসডিএ’র ম্যাকগভার্ন-ডোল আন্তর্জাতিক শিক্ষার জন্য খাদ্য এবং শিশু পুষ্টি কর্মসূচি উন্নয়নশীল দেশগুলোকে খাদ্য সরবরাহ করে এবং টেকসই স্কুল খাদ্য কর্মসূচি তৈরি করতে সহায়তা করে। ২০১৯ অর্থবছরে এই কর্মসূচির আওতায় সম্পাদিত চুক্তির মাধ্যমে কম্বোডিয়া, হাইতি, মালাউয়ি, মৌরিতানিয়া, মোজাম্বিক ও উজবেকিস্তানসহ নয়টি দেশকে ১৯ কোটি ৮০ লাখ ডলার সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

ইউএসডিএ’র `ফুড ফর প্রগ্রেস’ কর্মসূচির লক্ষ্য কৃষকদের উৎপাদনশীলতা বাড়ানো এবং বাজারে প্রবেশের সুযোগ সম্প্রসারিত করা। এ কর্মসূচি ২০১৯ অর্থবছরে ৩৩ টি দেশে কাজ করেছে। এর আওতায় কৃষিক্ষেত্রে অর্থায়নে ১৩ কোটি ১০ লাখ ডলারের বেশি অর্থ যোগানো হয়েছে এবং প্রায় ১ লাখ ৮৭ হাজার মানুষকে কৃষিকাজের উন্নত পদ্ধতি বা উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারে সহায়তা করা হয়েছে।

উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, ঘানাতে ‘ফুড ফর প্রগ্রেস’ কর্মসূচি ৭৬৪১ জন পোল্ট্রি খামারিকে উৎপাদন ব্যয় হ্রাস এবং ১২ কোটি ৮০ লাখ ডলারেরও বেশি মূল্যের পণ্য বিক্রিতে সহায়তা করেছে। এছাড়া এটি ইন্দোনেশিয়ার মসলাচাষীদেরকে তাদের পণ্যের আন্তর্জাতিক বাজারের মান অর্জন নিশ্চিত করার চেষ্টাতেও সহায়তা দিয়েছে।